February 28, 2024

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা কোনটি | বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা সম্পর্কে বিস্তারিত (A to Z)

পঞ্চম আদমশুমারি ২০১১ সালের চূড়ান্ত রিপোর্ট মতে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা হলোঃ রাঙামাটি। এর আয়তন ৬,১১৬.১১ বর্গ কিলোমিটার। আয়তনে সবথেকে ছোট জেলার নাম হলোঃ নারায়ণগঞ্জ; এদ আয়তন (৬৮৪.৩৭) বর্গ কিলোমিটার)

প্রিয় ভিজিটর আপনি যদি বাংলাদেশের বড় জেলায় ভ্রমন করতে চান অথবা শিক্ষা গ্রহনের জন্য জানতে চান তাহলে এই পোস্টটিই আপনার জন্য উপযুক্ত হবে। কারন এখানে আমি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলার সম্পর্কে এ টু জেড সব তথ্যই উপস্থাপন করার চেষ্টা করবো। আপনারা ইতিপূর্বেই জানতে পেরেছেন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা যে রাঙামাটি।

রাঙ্গামাটির জেলার অবস্থান এবং সীমানাঃ

বাংলাদেশের দক্ষিণ – পূর্ব অংশের ২২°২৭´ থেকে ২৩°৪৪´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯১°৫৬´ থেকে ৯২°৩৩´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ জুড়ে এই রাঙ্গামাটি জেলাটির অবস্থান।
রাঙ্গামাটির জেলাটি কর্ণফুলী নদীর তীরে অবস্থিত।

রাঙ্গামাটি জেলার পশ্চিমে রয়েছে চট্টগ্রাম ও খাগড়াছড়ি জেলা, পূর্ব দিকে রয়েছে মায়ানমারের চিন প্রদেশ ও ভারতের মিজোরাম; দক্ষিণে রয়েছে বান্দরবান জেলা এবং উত্তরে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য অবস্থিত।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা হতে রাঙ্গামাটি জেলার দূরত্ব প্রায় ৩০৮ কিলোমিটার। এবং চট্টগ্রাম বিভাগীয় সদর থেকে রাঙ্গামাটি দূরত্ব প্রায় ৭০ কিলোমিটার।

রাঙ্গামাটির জেলার জনসংখ্যাঃ

২০১১ সালের আদমশুমারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী রাঙ্গামাটি জেলার সর্বমোট জনসংখ্যা হল ৬,২০, ২১৪ জন। এ মোট জনসংখ্যার মধ্যে পুরুষ ৩,২৫,৮২৩ জন এবং মহিলা ২,৯৪,৩৯১ জন। রাঙ্গামাটির জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে প্রায় ১০১ জন।

ধর্ম বিশ্বাস অনুসারে রাঙ্গামাটি জেলার মোট জনসংখ্যার ৩৬.৮২% মানুষ মুসলিম, ৫.৩০% হিন্দু, ৫৬.০৬% বৌদ্ধ আর ১.৮২% খ্রিষ্টান ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বী।
রাঙ্গামাটি জেলায় চাকমা, মারমা, তঞ্চঙ্গ্যা, বম, চাক, মুরং, ত্রিপুরা, খেয়াং, খুমি, লুসাই, ম্রো, পাংখোয়া, সাঁওতাল, মণিপুরী প্রভৃতি ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীর বসবাস রয়েছে।

রাঙ্গামাটি জেলার প্রতিষ্ঠাকাল

১৮৬০ সালের জুন মাসের ২০ তারিখে (১) রাঙ্গামাটি, (২) খাগড়াছড়ি, (৩) বান্দরবান, এই তিনটি অঞ্চল কে নিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলা সৃষ্টি হয়েছিলো।
পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলা সৃষ্টি হওয়ার আগে এই ৩টি অঞ্চলকে কার্পাস মহল নামে পরিচিত ছিলো।

১৯৮১ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলা থেকে পৃথক হয়ে তারা বান্দরবান জেলা তৈরী হয়।

এর ২ বছর পরে ১৯৮৩ সালে চট্টগ্রাম জেলা থেকে খাগড়াছড়ি অঞ্চলটি ও পৃথক হয়ে যায়, এবং খাগড়াছড়ি জেলা সৃষ্টি হয়।

এরপরে পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলার মূল অংশ রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে।

রাঙ্গামাটির জেলার শিক্ষা ব্যবস্থা

রাঙ্গামাটি জেলায় রয়েছেঃ

৪১১ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়। 

৫১ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, এর মধ্যে ৬ টি হলো সরকারি আর বাকিগুলো বেসরকারি।

২২ টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

১৬ টি কলেজের মধ্যে ২ টি সরকারি।

১৫ টি মাদ্রাসা।

১ টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

১ টি সরকারি মেডিকেল কলেজ।

রাঙ্গামাটি জেলার শিক্ষার হার কত?

রাঙ্গামাটি জেলাতে শিক্ষার হার ৪১.৮১% (সেন্সাস ২০০১)
মোট জনসংখ্যার ২,৮৭,০৬০ জন পুরুষ এবং ২,৩৮,০৪০ জন নারী রয়েছে। জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৮৬ জন।

রাঙামাটির জেলার প্রশাসনিক এলাকাসমূহ

রাঙ্গামাটি জেলার মধ্যে মোট ১০ টি উপজেলা রয়েছে। এবং এই জেলায় ১২ টি থানা রয়েছে। জেলাটিতে ২ টি পৌরসভা, ৫০ টি ইউনিয়ন রয়েছে, ১৫৯ টি মৌজা রয়েছে, রাঙামাটি জেলাটিতে ১৩৪৭ টি গ্রাম রয়েছে এবং একটি সংসদীয় আসন গঠিত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ সাদিয়া নামের অর্থ কি? |বাংলা- আরবি -ইসলামি অর্থ | Sadia Namer Ortho Ki (A to Zজেনে নিন)

রাঙামাটি জেলায় অবস্থিত উপজেলাসমূহ

(১) রাঙ্গামাটি সদর – উপজেলার আয়তন = ৫৪৬.৪৯ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: কোতোয়ালী।

(২) কাউখালী – উপজেলার আয়তন = ৩৩৯.২৯ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: কাউখালী।

(৩) কাপ্তাই – উপজেলার আয়তন = ২৫৯ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: চন্দ্রঘোনা।

(৪) জুরাছড়ি – উপজেলার আয়তন = ৬০৬.০৫ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: জুরাছড়ি।

(৫) নানিয়ারচর – উপজেলার আয়তন = ৩৯৩.৬৮ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: নানিয়ারচর।

(৬) বরকল – উপজেলার আয়তন = ৭৬০.৮৮ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: বরকল।

(৭) বাঘাইছড়ি – উপজেলার আয়তন = ১৯৩১.২৮ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: সাজেক।

(৮) বিলাইছড়ি – উপজেলার আয়তন = ৭৪৫.৯২ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: বিলাইছড়ি।

(৯) রাজস্থলী – উপজেলার আয়তন = ১৪৫.০৪ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: রাজস্থলী।

(১০) লংগদু – উপজেলার আয়তন = ৩৮৮.৪৯ (বর্গ কিলোমিটার) – এই উপজেলার থানার নাম: লংগদু।

রাঙ্গামাটি জেলার দর্শনীয় স্থান সমূহ কি কি?

রাঙ্গামাটি জেলার দর্শনীয় বিখ্যাত স্থানগুলোর নাম নিচে দেওয়া হলোঃ

১। সুবলং ঝর্ণা
২। কর্ণফুলী হ্রদ
৩। ঝুলন্ত সেতু
৪। কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্পিলওয়ে
৫। পর্যটন মোটেল ও
৬। শুকনাছড়া ঝর্ণা
৭। টুকটুক ইকো ভিলেজ
৮। ধুপপানি ঝর্ণা
৯। পেদা টিং টিং
১০। মুপ্পোছড়া ঝর্ণা
১১। ঐতিহ্যবাহী চাকমা রাজার রাজবাড়ি
১২। কর্ণফুলি পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র
১৩। রাইংখ্যং পুকুর
১৪। রাজবন বিহার
১৫। চাকমা বাজার রাজবাড়ি
১৬। বুদ্ধদের প্যাগোডা
১৭। কাপ্তাই জাতীয় উদ্যান

রাঙ্গামাটি জেলা টি কিসের জন্য বিখ্যাত?

রাঙ্গামাটি জেলায় রয়েছে বিভিন্ন ফলের গাছ এবং দর্শনীয় স্হান এই কারই এই জেলাটি বিখ্যাত। আনারাস, কাঠাল এবং কলা বেশী ফলে এই কারনেই রাঙ্গামাটি জেলাকে অনেকে বিখ্যাত বলে থাকে।

আমাদের কথা

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা কোনটি এ নিয়ে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করেছি এ পোস্টে; জানিনা কতটুকু জানাতে পেরেছি।

পোস্টটি পড়ে উপকৃত হয়ে থাকলে, পোস্ট লিংকটি কপি করে আপনার ফেসবুক আইডিতে একটি পোস্ট দিয়ে সকল বন্ধুদের মাঝে ছড়িয়ে দিন, যেনো তারাও লাভবান হয়।

Dreamer

বিশ্বজোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র .........

View all posts by Dreamer →