February 28, 2024

বাংলালিংক নাম্বার চেক করার সহজ পদ্ধতি | Banglalink Number Check করার A to Z নিয়ম

মোবাইল নাম্বার চেক বাংলালিংক

মোবাইল নাম্বার চেক করার কোড – বাংলালিংক নাম্বার কোড – বাংলালিংক ফোন নাম্বার চেক – বাংলালিংক টাকা চেক – ভুলে যাওয়া সিমের নাম্বার চেক – নিবন্ধিত সিম নাম্বার জানার উপায় – বাংলালিংক নাম্বার এমবি চেক – সব সিমের নাম্বার দেখার কোড

বাংলালিংক বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় অপারেটর যার চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে, বাংলালিংক বর্তমানে দেশের ৩য় অবস্থানে রয়েছে (উইকিপিডিয়া এর তথ্যমতে) যাহোক এই অপারেটর টি বাংলাদেশের মানু‌ষের যোগাযোগকে সাশ্রয়ী করার উদ্দেশ্য অনেক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বহু দিন ধরেই। আমি মনে করি তাদের কলরেট এবং মেগাবাইট প্যাকেজ মূল্যে গ্রাহকরা স্যাটিসফায়েড, তাইতো এর গ্রাহক এতো বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আমারা যারা নেট ইউজ করি তাদের অনেকগুলো সিম থাকলে সুবিধা হয় এটা সবাই ই জানেন, কারন পুরনো বা বন্ধ সিমে বেশী বেশী বিগ অফার আসে অনেক; এই অনেকগুলো বাংলালিংক / যেকোনো সিমগুলো চালানোর কারনে সব নাম্বার গুলো মুখস্ত রাখা সম্ভব হয়না আবার লিখে রাখাও অসম্ভব প্রায়।

রিচার্জ করার সময়ে বা কাউকে দেওয়ার জন্য তো নাম্বার জানা প্রয়োজন তখন সংক্ষেপেই টিপ দিয়ে যেকোনো বাংলালিংক সিমের নাম্বার বের করে ফেলতে পারবেন ছোট্র একটা কোড ডায়াল করেইকোডটি একটু পরেই নিচে পেয়ে যাবেন।

বাংলালিংক সিম অপারেটর সম্পর্কে আমি সংক্ষেপে জানাতে চাইঃ

বাংলালিংক অপারেটর এর মালিক নেদারল্যান্ডসের ভিওন নামক এক ব্যাক্তি। এই লোকটির উদ্দেশ্যে ছিলো সবার যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সহজ করে দেওয়া অল্প খরচে, তাই এই কোম্পানীটি ১৯৯৯ সালে Launch করে; ২০০৫ সালের December প্রযন্ত বাংলালিংক এর ইউজার ছিলো ১.০৩ মিলিয়ন।

একবছর পরেই মানে ২০০৭ সালে বাংলালিংক কোম্পানীর গ্রাহক সংখ্যা হয়ে যায় ৬.০৪ মিলিয়ন, এরপরে ২০১৬ সালের প্রথমের দিকে এর ইউজার সংখ্যা ৩ কোটি প্লাস ছাড়িয়ে যায়।

মোবাইলে যোগাযোগকে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সাশ্রয়ী করে তোলার ক্ষেত্রে বড় অবদান রেখেছে এই কোম্পানিটি। মোবাইলে যোগাযোগকে সবার নাগালে আনার জন্য তাদের এ প্রচেষ্টাকে আমি মন থেকেই শ্রদ্ধা জানাই।

বাংলালিংক অপারেটরের মালিক “ভিওন” সম্পর্কে উইকিপিডিয়া জানুনঃ এই লিংক থেকে 

বাংলালিংক সিমের নাম্বার চেক করার নিয়ম / বাংলালিংক সিমের নাম্বার দেখার নিয়মঃ

ফাস্ট স্টেপঃ

প্রথমে আপনার ফোনের ডায়াল প্যাডে চলে যান, এবং টাইপ করুন *৫১১#

২য় স্টেপঃ

এইবার একটু অপেক্ষা করুন, ৩-১০ সেকেন্ড অপেক্ষা করা লাগতে পারে আপনাকে এরপরই দেখবেন আপনার বাংলালিংক ফোন নম্বরটি চলে এসেছে।

এই সিস্টেম টি যদি কাজ না করে তাহলে আপনি যা করবেনঃ

এই পদ্ধতি কাজ না করলে ভয় পাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই, সাধারণত সমস্যা হয়না তবুও যদি সমস্যা ফেস করেন তাহলে আপনি 121 ডায়াল করে কল করুন কাস্টমার কেয়ার অফিসে তাহলেই আপনি পেয়ে যাবেন আপনার বাংলালিংক ফোন নাম্বারটি।

বাংলালিংক (Banglalink) হেল্পলাইন সম্পর্কেঃ

হেল্পলাইন নাম্বারঃ 121
হেল্পলাইন অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ info@banglalink.net
বাংলালিংক হেল্পলাইন নাম্বার ২৪/৭ ঘন্টাই খোলা থাকে।

প্রতিটি বাংলালিংক গ্রাহকেরই জানা প্রয়োজন নিত্যপ্রয়োজনীয় কিছু শর্ট কোডঃ

যেমনঃ প্রথমেই জানা প্রয়োজন ব্যালান্স চেক, এরপরে ইন্টারনেট চেক, তারপর মিনিট চেক, এসএমএস চেক কোড, এমএমএস চেক শর্ট কোড, নাম্বার চেক, আরো অনেক শর্ট কোড, যেগুলো নিচে দিয়ে দিলাম।

Banglalink এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট লিংকঃ https://www.banglalink.net/bn

বাংলালিংক এর আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ শর্ট কোড জেনে নিনঃ

(১) বাংলালিংক ফোন নাম্বার চেক কোডঃ | Banglalink Number Check:

Just dial *511# to Know Banglalink number.

(২) বাংলালিংক মোবাইল ব্যালান্স চেক কোডঃ | Mobile Balance check: *124#

(৩) বাংলালিংক মিনিট চেক কোডঃ | Minute Check: *1242#

(৫) বাংলালিংক এসএমএস চেক কোডঃ | SMS Pack Check: *1243#

(৬) বাংলালিংক এমএমএস চেক কোডঃ | MMS Check: 1242#

(৭) বাংলালিংক ইন্টারনেট ব্যালান্স চেক কোডঃ | Internet Balance Check: Dial 5000500# or *1243#