February 27, 2024

জবাব PDF Download | আরিফ আজাদের বই pdf | Jobab pdf book by Arif azad

 

জবাব পিডিএফ

জবাব বই pdf free download | আরিফ আজাদের বই pdf | arif azad books pdf | আরিফ আজাদের বই pdf download | Jobab bangla Islamic best seller book free download. | আরিফ আজাদ এর pdf বই।

জবাব বই রিভিউঃ

✅ ইসলাম-বিরোধী বিভিন্ন ইস্যুতে মুসলিমদের বুদ্ধিবৃত্তিক প্রতিউত্তর হলো- জবাব।  
সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে সবকিছুর পালাবদল হচ্ছে। পুরনো চিন্তার স্থান দখল করে নিচ্ছে নতুন নতুন চিন্তা-চেতনা। সবকিছুতে বদলের হাওয়া লাগলেও ইসলাম-ই চৌদ্দশত বছর ধরে চিন্তা-চেতনা ও জ্ঞান-বিজ্ঞানে পরিপূর্ণ ও অবিকৃত রয়েছে। এর রয়েছে সমসাময়িক ও পরবর্তী দিনের উপযোগিতা।

২০১৩ সালের শেষের দিকে কমিউনিটি ব্লগগুলোতে নাস্তিকরা ইসলামের নানান বিধি-বিধান,
আল্লাহর নবি-রাসুল নিয়ে কটূক্তি, মিথ্যাচার আর প্রোপাগাণ্ডা চালাতে শুরু করে। ওই সময়ে ব্লগের জগতে নাস্তিকরা যতটা সক্রিয় ছিল চিন্তাশীল মুসলিমদের পদচারণা ঠিক ততটাই মৃদু ছিল।

 ২০১৮ সালে “ইসলাম বিরোধীদের জবাব” নামক ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে নাস্তিকদের উত্থাপিত যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর এবং পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে চ্যালেঞ্জ করা হয়। ওয়েবসাইট এর সেরা লেখাগুলোর সংকলন গ্রন্থ– জবাব। এই বইটি অনেক লেখকের সমন্বিত চেষ্টার ফল। চিন্তাশীল, গবেষণাধর্মী ও প্রচুর রেফারেন্স সমৃদ্ধ একটি নিরলস প্রচেষ্টার নাম…জবাব।

✅ পাঠক, আপনি যদি সত্যিই সঠিকটা জানতে চান, সবকিছুকে যুক্তি-প্রমাণ দিয়ে যাচাই করে বিশ্বাস করতে চান এবং যুক্তিগুলো শোনার জন্য আপনার যথেষ্ট ধৈর্য্য ও বোঝার জন্য একটি সুস্থ মস্তিষ্ক থেকে থাকে তবে বইটি আপনার জন্য।

কেননা প্রশ্নের উত্তরগুলো নিয়ে ভাবার জন্য সুস্থ বিবেক-বুদ্ধি সম্পন্ন না হলে এবং প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণার বিরুদ্ধে অন্যের মতামত শোনার ধৈর্য্য না থাকলে কখনো সত্যের সন্ধান পাওয়া যাবে না। আর সত্যের পথ তো সামনে খোলাই আছে। শুধু সন্ধানটা করে নিতে হবে। তবে কিছু মানুষের শুধুই ইসলাম বিরোধী প্রশ্ন আর প্রশ্ন। কিন্তু তারা কি কখনো নিজ থেকে এই প্রশ্নগুলোর যুক্তিভিত্তিক উত্তর খোঁজার চেষ্টা করেছে? নাকি উত্তর দেওয়ার দায়িত্ব শুধুমাত্র মুসলিমদের?

সত্যের সন্ধান পেতে হলে নিজেকেও চেষ্টা করতে হয়, অন্যের ওপর পুরোপুরি নির্ভর করে থাকলে চলে না। কারও কারও সামনে আবার দিনের আলোর মতো পরিষ্কার করে যুক্তি দিয়ে প্রমাণ করার পরও তারা সত্যকে মানতে নারাজ। সম্ভবত তাদের উদ্দেশ্য সত্যের সন্ধান নয় বরং শুধুই ইসলামকে কটাক্ষ করা।

 আল্লাহ্ বলেন, “তাদের হৃদয় আছে; কিন্তু তা দিয়ে তারা উপলব্ধি করে না। তাদের চোখ আছে; কিন্তু তা দিয়ে তারা দেখে না। তাদের কান আছে; কিন্তু তা দিয়ে তারা শোনে না। তারা পশুর মতো বরং তাদের চেয়েও অধম। তারা চরম গাফিলতির মধ্যে হারিয়ে গেছে।” (সূরা: আল-আরাফ, আয়াত: ১৭৯)
আল্লাহর নিদর্শন দেখার পরও যারা অস্বীকার করে, পাঠক, আপনি তাদের দলভুক্ত নন তো?

✅ যারা সত্য ও শান্তির পথের, আলো ও কল্যাণের পথের যাত্রী হতে চান কিংবা নিজের ইমানকে দৃঢ় করতে চান কিন্তু মনের মধ্যে ইসলাম সম্পর্কে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে থাকে, ইসলাম বিদ্বেষীদের মিথ্যাচারের চক্রান্তে নিজেকে দুর্বল মনে হয় তবুও তাদের ভেঙে পড়ার কোনো কারণ নেই, আমাদের মনে ইসলাম বিরোধী নানা প্রশ্ন দানা বাঁধার একমাত্র কারণ ইসলাম সম্পর্কে আমাদের জ্ঞানের সল্পতা। ইসলামকে ভালোভাবে না জানা, বুঝতে না পারা, যথার্থ গবেষণা না করা, আয়াতের ভুল ব্যাখ্যা, জাল-যয়িফ হাদিসের উদ্ধৃতি এবং নাস্তিকদের উসকানিতে আমাদের বিবেক-বুদ্ধি নড়বড়ে হয়ে যায়।

নিজেদের ইমানকে, ইসলাম সম্বন্ধে চিন্তা-চেতনা ও যুক্তি-প্রমাণকে পর্বতের মতো অটল ও বজ্রের মতো কঠিন করবার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়তো এখনো আমাদের অজানা। যেমন-

🔴 বিজ্ঞান কি আসলেই যুক্তি-প্রমাণসাপেক্ষ সত্য নাকি বিজ্ঞানের মূলভিত্তিই হলো কিছু ধারণাকে “ঠিক বলে ধরে নেওয়া” বা “বিশ্বাস করে নেওয়া”। সকল তথ্য-উপাত্ত স্রষ্টার দিকে ইঙ্গিত করার পরও তাকে পাশ কাটিয়ে বিজ্ঞান শুধু জাগতিক ব্যাখ্যাই দেয়।তাহলে এতদিন ধরে বিজ্ঞান বিজ্ঞান জপ করা ব্যক্তিরা আপনাকে বোকা বানায়নি তো?

🔴 অতি সামান্য কাজেও শক্তি লাগে। শক্তি ব্যয় করেই শক্তি উৎপন্ন হয়। তাহলে মানুষ কিভাবে বিশ্বাস করতে পারে যে কোনো শক্তি প্রয়োগ করা ছাড়াই মহাবিস্ফোরণ হলো এবং সেই জ্বালাও-পোড়াওময় আবহাওয়ায় কারও হস্তক্ষেপ ছাড়াই রাসায়নিক পদার্থের মনে হলো যে তারা প্রাণ সৃষ্টি করবে? কোন বিস্ফোরণের ফলাফলই বা এতো সুন্দর ও শৃঙ্খলাবদ্ধ হতে পারে? আছে কি কোনো নজির!

🔴 নারী স্বাধীনতা নাকি দাসত্ব? সবক্ষেত্রে পুরুষের সমপর্যায়ে থাকার নীতি, নারীদের জীবনের মূল্য নির্ধারণে পুরুষকেই একমাত্র মানদণ্ড বানিয়ে ফেলছে না তো? নারী-পুরুষের স্বতন্ত্র হওয়ার মাঝেই সম্মান, কার্বন কপি হওয়ার মধ্যে নয়। নারীকে স্বাধীন দেখানো হলেও আসলে “পুরুষের স্ট্যান্ডার্ডে” তাকে বন্দি করা হচ্ছে।

🔴 নারীরা কি সল্পবুদ্ধির? তাদের অধিকাংশই কি জাহান্নামী? নাকি নারীদের জান্নাতে যাওয়ার সুযোগও বেশি? আল্লাহ্ নারীদের সমস্যাগুলো ভালোভাবেই জানেন তাই তাদের জন্য উপযুক্ত বিধানও দিয়েছেন।

🔴 ইসলাম-ই কি দাসপ্রথার জন্ম দিয়েছে? না, বরং  পৌনে ৪০০০ বছর আগে ব্যাবিলনীয় সভ্যতায়ও এর অস্তিত্ব পাওয়া যায়। ইসলাম ১৪০০ বছর আগে দাসকে নেতৃত্বের সুযোগ দেওয়ার মতো যুগান্তকারী ব্যাবস্থাও নিয়েছিল।

🔴 কিয়ামতের ২০০০ বছর আগে ও ২ দিন আগে মারা যাওয়া পাপী ব্যক্তির পাপ সমান হলেও শাস্তি কি কম-বেশি হবে? ইসলাম হিজড়াদের সত্যি নির্বিচারে হত্যা করতে বলে? স্রষ্টা থাকতে মানুষ কেন অনাহারে থাকে? স্রষ্টা ঘন ঘন নিদর্শন দেখান না কেন?

🔴 ইসলামে দাসীদের ব্যাপারে বিধান কী? কুরআনের একেক আয়াতে একেক কথা! “তোমাদের স্ত্রীগণ তোমাদের শস্যক্ষেত্র” নারীদের প্রতি স্বেচ্ছাচারীতা না উপমা দিয়ে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করা?

✅ উপরোক্ত ইসলাম বিদ্বেষী প্রশ্নগুলোর বিজ্ঞান ও বুদ্ধি দিয়ে যথার্থ জবাব দিয়েছেন সম্মানিত লেখকগণ। প্রতিটি উত্তরে পাঠক অবশ্যই পরিপূর্ণভাবে সন্তুষ্ট হবেন। স্তম্ভের মতো দৃঢ় করে নিতে পারবেন নিজের বিশ্বাসকে। কখনো প্রশ্ন-উত্তর, কখনো গল্প আবার কখনো আলোচনা দিয়ে লেখকগণ সবকিছুকে যেভাবে উদাহরণ ও রেফারেন্স সহকারে সহজে ব্যাখ্যা করেছেন তাতে যুক্তি-প্রমাণ গুলোকে নিজের বোধগম্য করা মোটেও কঠিন হবে না। পরবর্তীতে নাস্তিকদের ভিত্তিহীন প্রশ্নে বিচলিতও  হবেন না। ইসলাম সম্বন্ধে সন্দেহের কোনো অবকাশও থাকবে না।

মহান গফুরুর রহিম আল্লাহ্ যেন আমাদের সকলের ভুলগুলো ক্ষমা করে হিদায়াতের মাধ্যমে ইসলামের সুশীতল ছায়ায় আশ্রয় দেন–আমিন

বইয়ের বিবরণ

বইয়ের নামঃ জবাব
লেখকঃ আরিফ আজাদ
পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ২৬০ টি।
ক্যাটেগরিঃ ইসলামিক
রকমারি থেকে ক্রয় করার লিঙ্কঃ জবাব বই

Download Now


 coming soon…

#বইটি ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। #লেখকের ক্ষতি আমাদের কাম্য নয়,  বইটির হার্ড কপি কেনার সমর্থ থাকলে বইটির হার্ড কপি কিনে পড়ুন।
#(আমাদের ব্লগের সমস্ত বইগুলো ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। লেখকের বা প্রকাশনীর যদি কোনো বইয়ের PDF নিয়ে অভিযোগ থাকে তাহলে দয়াকরে জানান, আমাদেরকে জানানোর ২৪ ঘন্টার মধ্যে PDF টি রিমুভ করে দিবো।) ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। ধন্যবাদ পোস্ট টি পড়ার জন্য।